নিউজরুম ৭১॥ বসন্তের হাওয়ায় নতুন প্রাণের স্পন্দন প্রকৃতিতে। টকটকে লাল শিমুল ফুলে ছেয়ে গেছে বাগান, এক ডাল থেকে অন্য ডালে খুনসুটিতে ব্যস্ত পাখিরা। বসন্তবরণে হাওরের জনপদ সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের শিমুল বাগান যেন সেজেছে অপরূপ সাজে।

বাতাসে বসন্তের গান। শীতে চুপসে থাকা গাছগুলোর মাথায় রক্তিম আভা। যেন যাদুকাটা নদীর তীরে শিমুল বাগানে লেগেছে রঙের হাওয়া ।

হাওর জনপদ সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের অন্যতম আকর্ষণ এই শিমুল বাগান। প্রতিবছর মাঘের শুরু থেকেই সারিবদ্ধভাবে লাগানো এ শিমুল গাছগুলো ফুলের পসরা সাজিয়ে বসন্তকে স্বাগত জানিয়ে মুগ্ধ করে পর্যটক ও দর্শনার্থীদের।

ওপারে ভারতের মেঘালয় পাহাড়। মাঝে চোখ জুড়ানো মায়াবী যাদুকাটা নদী। সব মিলে মিশে মানিগাঁও গ্রামটি অপরুপ এক কাব্যিক ভাবনার প্রান্তর। পাপড়ি মেলে থাকা শিমুলের রক্তিম আভা পর্যটকদের কল্পনায় বিভোর করলেও তাদের জন্য নেই পর্যাপ্ত ব্যবস্থা। তবে সেই ভাবনা নিয়েই ভ্রমণপিঁপাসুদের জন্য নেয়া হচ্ছে পরিকল্পনা।

২০০২ সালে বাদাঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন ৯৮ বিঘা জমিতে রোপন করেন তিন হাজার শিমুলের চারা। যা এখন দৃষ্টিনন্দন বাগানে রূপ নিয়েছে। অপরূপ সৌন্দর্যের এই আধারকে পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা চান দর্শনার্থীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *